ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম। র‍্যাংকিং করতে যা জানতে হবে

ব্লগ লেখার নিয়ম কানুন কি? নতুনরা এই বিষয় নিয়ে বেশ চিন্তায় থাকেন। তাইদের জন্যই আমাদের আজকের এই পোষ্ট ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম।

এই পোস্টে আমরা একটি ব্লগ সাইটে পোস্ট করার সকল নিয়ম কানুন সমূহ দেখব। যা অনুসরণ করলে আশা করি আপনার পোষ্ট সার্স ইঞ্জিনে অনেক এগিয়ে থাকবে।

আর সার্স ইঞ্জিনে ভাল পজিশনে থাকা মানে বেশি ভিজিটর ও বেশি আয়। এজন্য আমাদেরকে এসইও ফ্রেন্ডলি(SEO-Friendly) পোস্ট তৈরি করতে হবে।

ব্লগ লেখার নিয়ম

ব্লগ লেখার নিয়ম

আমরা পূর্বেই বলেছি একটি ব্লগ সাইটি SEO-Friendly কন্টেন্ট তৈরি করতে হবে। আর এটাই মূলত ব্লগ লিখার প্রকৃত নিয়ম।

আর SEO-Friendly কন্টেন্ট লিখতে আপনাকে কিছু নিয়ম বা কৌশল জানতে হবে। আমরা আস্তে আস্তে সকল নিয়ম দেখব।

যার ফলে আপনি কিভাবে পোস্ট তৈরি যায় তা সহজেই বোঝতে পারবেন। তবে অনেক নতুন মানুষ রয়েছে যারা কিভাবে ব্লগ পোষ্ট ইডিট করতে হয় তা বোঝতে পারেনা।

আপনি জেনে খুসি হবেন যে ব্লগ পোস্ট লিখা বা ইডিট করা খুবই সহজ। যারা MS Word পূর্বে ব্যাবহার করেছেন তাদের কোনো সমস্যা হবে না।

কারণ বেশির ভাগ ব্লগ পোস্টগুলো MS Word এর মতই হয়ে থাকে। তবে একেবারে নতুনদের কোনো টেনশন নেই।

করাণ আপনি চেষ্টা করলেই পারবেন আর রা খুবই সহজ। আর না পারলে ইউটোবে এই বিষয়ে অনেক ভিডিও পেয়ে যাবেন।

ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম সমূহ

ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম

আমি আপনাকে সরাসরি ব্লগ লেখার নিয়ম কানুন সমূহ বলে দিতে পারতাম। কিন্তু সেটি প্রফেশনাল মানের হতো না।

তাই আমাদেরকে প্রথমে বেশিক কিছু বিষয় বুঝতে হবে। ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম সমূহ এসইও এর বিশাল একটি অংশ যাকে অনপেজ (On-page SEO) বলে।

একটি ওয়েবসাইট র‍্যাংকিং এ আসার জন্য On-page SEO খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর বাংলা ভাষায় যারা ব্লগ লিখে তাদের উচিত এটিতে আরও বেশি গুরুত্ব দেওয়া।

আমার দেখা মতে এবং বিভিন্ন বাংলা ব্লগ গ্রুপের জরিপে দেখা গিয়েছে যারা ভাল করে ON-page SEO করেছে এবং কম কম্পিটিশন কিওয়ার্ড ব্যবহার করেছে তারা খুব সফল হয়েছে।

তাই নিচের নিয়মগুলো ভাল করে পড়ুন আর আপনার সাইটে নিখুঁভাবে পালন করুন। ইনশাল্লাহ আপনি সফল হবেন।

SEO হচ্ছে একটি ওয়েবসাইট থেকে আয়ের মূল ভৃত্তি। তাই আপনার যদি এসইও নিয়ে স্পষ্ট জ্ঞান না থাকে তাহলে আগে এই পোস্টটি পড়ুন এসইও কি ও কত প্রকার

কিওয়ার্ড রিসার্চ (Keyword Research):

কিওয়ার্ড(Keyword) হলো যা লিখে আমারা সার্স ইঞ্জিনে (যেমনঃ Google, Bing, Yahoo) সার্স করি। এখন আপনি একটি পোস্ট লিখলেন খুব ভাল মানের যা পড়ে অনেকের উপকারে আসবে।

কিন্তু মানুষ যা লিখে মানুষ সার্স করে শুধু সেই অংশাটুকু আপনার পোস্টে নেই। বাকিসব খুব ভাল করে আছে।

আর এই কারণেই আপনার পোস্ট সার্স ইঞ্জিনে (Search Engine) সবার উপরে আসবে না। তাই এই বিষয়ে আপনাকে স্পষ্ট ধারণ রাখতে হবে।

কিভাবে Keyword Research করবেন ইউটোবে সার্স করলেই অনেক ভিডিও পেয়ে যাবেন। তবে মনে রাখবেন কম কম্পিটেশন Keyword নিয়ে পোষ্ট লিখাই ভাল।

কিওয়ার্ড ডেনসিটি (Keyword Density)

আপনার পোস্টে শুধু Keyword থাকলেই হবে না। আপানার পোস্টে কত বার কিওয়ার্ডটি ব্যবহার করা হয়েছে তা পরিমাপ হলো কিওয়ার্ড ডেনসিটি (Keyword Density)।

তবে কিওয়ার্ড ডেনসিটি বেশি মানেই আপনার পোস্ট র‍্যাংকিং করবে তেমনটাও নয়। মনে রাখবেন পোস্টের মানই বড় বিষয়।

তবে একটি পোস্টের কিওয়ার্ড ডেনসিটি কত হবে তা নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন থাকে। অনেকের মতে তা ১% এর কাছাকাছি হওয়াই ভাল।

মানে ১০০ ওয়ার্ডের মধ্যে আপনার কিওয়ার্ডটি ১ বার থাকতে পারে। তবে ফোকাসিং কিওয়ার্ড সাথে সাথে রিলেটেট কিওয়ার্ডগুলো ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

ভূমিকায় কিওয়ার্ড (Keyword in Introduction)

আপনার পোস্টের প্রথমে ফোকাসিং কিওয়ার্ডটি থাকা ব্লগ লেখার একটি বিশেষ নিয়ম। এইটি বেশ ভাল একটি এসইও প্রেকটিক্স।

সব সময় আপনার পোস্টের প্রথম প্যারাগ্রাফে ফোকাসিং কিওয়ার্ডটি রখতে চেষ্টা করবেন। অনেকে এসইও এক্সপার্ট বলে প্রথম ১০০ শব্দের মধ্যে রাখা উচিত।

তবে আমি বলব পোস্টের প্রথম প্যারাগ্রাফেই ফোকাসিং Keyword রাখুন। আর পাশপাশি রিলেটেট কিওয়ার্ডগুলো রাখতে চেষ্টা করবেন।

তাতে আপনার পোস্টটি সার্স ইঞ্জিনে র‍্যাংকিং পেতে অনেক এগিয়ে থাকবে। তবে হ্যাঁ ট্যাকনিক্যালি রিলেটেট কিওয়ার্ড লিখবেন।

মনে রাখবেন আপনার ব্লগ সাইটের জন্য পোস্টের মান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই অযথা বা অগুছালো Related Keyword ব্যাবহার করবেন না। 

ইউআরএল অপটিমাইজেশন (URL Optimization)

পূর্বেই আমার Keyword কি সেই সম্পর্কে বলেছি। আপনি ফোকাস কিওয়ার্ডটি আপনার ব্লগ পোস্টের ইউআরএলে(URL) রাখার মানেই হলো URL অপটিমাইজেশন।

মনে রাখবেন URL অপটিমাইজেশন SEO এর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই ব্লগে পোস্ট লিখার অন্যতম নিয়ম হচ্ছে ফোকাস Keyword টি URL-এ রাখা।

অনেক সময় একটি পোস্টের একাধিক Keyword থাকতে পারে। তাই অনেকে একাধিক কিওয়ার্ড URL-এ রাখতে চায়। কিন্তু এটি একটি বিশাল বড় ভুল কাজ।

বিভিন্ন রিসার্চে দেখা গেছে ছোট URL গুলো বেশি র‍্যাংক করে থাকে। তাই বেস্ট উপায় হচ্ছে ফোকাস কিওয়ার্ড়টি হুবুহুব URL-এলে রাখা।

আবারো বলছি একাধিক Keyword স্লাগ বা URL-এ রাখবেন না। কেননা এটি হিতে বিপরীত হতে পারে।

ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ(Short Paragraph)

এখনো আমারা অনেকে এই ভুলটা করে থাকি। আমার বড় পোস্ট লিখি ঠিকই কিন্ত ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ আকারে লিখিনা। কিন্তু এটি ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম সমূহের মধ্যে বেশ কার্যকরী।

সব সময় চেষ্টা করবেন ২/৩ টি বাক্য দিয়ে একটি প্যারাগ্রাফ শেষ করে দিতে। আর বেশি বড় বাক্য হলে এক বাক্যেই প্যারাগ্রাফ শেষ করাই ভাল।

এটি ব্লগে পোস্ট লিখার বেস্ট একটি নিয়ম। গবেষণায় দেখা গিয়েছে যারা ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ দিয়ে পোস্ট লিখেন তাদের পোস্ট বেশি র‍্যাংকিং করে। 

তাছাড়া পোস্টে ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ ব্যবহার করলে ভিজিট আপনার সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ার সম্ভবনা অনেক বেড়ে যায়।

তাছাড়া কি লিখা হয়েছে তা সহজেই বোঝা যায়। যার ফলে ভাউন্স রেট কমে এবং পেজ ভিউ বেড়ে যায়।

আর এর ফলে আপানর ইনকামও অনেক বেড়ে যেতে বাড়ে। তাই দুই/তিন লাইন লিখে স্পেস দিতে বা প্যারাগ্রাফ তৈরি করতে ভুলবেন না।

ইমেজ অলটার ট্যাগ (Image Alter Tag) 

ইমেজ ইনসার্ট  করার সময় Alter বা alt ট্যাগের অপশন পাবেন। এখানে যা লিখা হয় সার্স ইঞ্জিন সেই ইমেজকে তা হিসাবে ডিটেক্ট করে।

তাই আপনি যদি ইমেজের অল্টার ট্যাগ না দেন তাহলে সার্স ইঞ্জিন ইমেজটি কি সম্পর্কে তা ডিটেক্ট করতে দেরি কতে বুঝতে পারে।

যার ফলে আপনার পোস্টটি সার্স ইঞ্জিনে র‍্যাংকিং নাও করতে পারে। তাই সব সময় চেস্টা করবেন ইমেজের অল্টার ট্যাগ ব্যবহার করতে।

তবে মনে রাখবেন ইমেজটি যেই সম্পর্কে সেই বিষয়ে অল্টার ট্যাগ দিবেন। শুধু মাত্র কিওয়ার্ড দিয়ে ওভার অপ্টিমাইজ করবেন না।

ইমেজ অপটিমাইজেশন (Image Optimization)

বর্তমানে ওয়েব সাইট লোডিং অনেক বড় একটি র‍্যাংকিং ফ্যাক্টর। তাই আপনার সাইট ফাস্ট লোডিং হচ্ছে কিনা তা নিশ্চিত করতে হবে।

আপনার পোস্টের ইমেজ যদি অপটিমাইজেশন না করা হয় তাহলে সাইট ধেরিতে লোড হবে। ফলে আপনি ভিজিটর থেকে ভাল রেসপন্স পাবেন না।

অন্যথায় আপনি র‍্যাংকিং হারাবেন কিংবা র‍্যাংক পেতে অসুবিধা হবে। ইমেজ অপটিমাইজেশন করার অনেক টুল রয়েছে। তার মধ্য জনপ্রিয় হলো TinyPngKraken.

এগুলো আপনার ইমেজের কোয়ালিটি ঠিক রেখে সাইজ কমিয়ে দিবে। ফলে সাইট দ্রুত লোড হবে। তাই ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম এই নিয়মটি অনুসরণ করতে ভুলবেন না।

ইন্টার্নাল লিংক (Internal Link)

আমারা বেশির ভাগ ব্লগার ইন্টার্নাল লিংক (Internal Link) বিল্ড আপে তেমন গুরুত্ব দেই না। কিন্ত এটি একটি ওয়েব সাইট ভাল পর্যায়ে যাওয়ার পূর্ব শর্ত।

সেটা উইকিপিডিয়া নামের ওয়েব সাইটটি লক্ষ্য করলেই বোঝা যাবে। অনেক এসইও এক্সপার্ট বলে উইকিডিয়া এতো র‍্যাংকিং এ আসা ও জনপ্রিয় হওয়ার অন্যত কারণ হচ্ছে এটিটে ভাল মানের Internal Link রয়েছে।

তাই আপনার পোস্টে Internal Link বিল্ড আপ করুন। তবে মনে রাখবেন শুধু ইন্টারনাল লিংকিং করলেই হবে না।

আপনার পোস্টের সাথে যে পোস্টের মিল রয়েছে সেই পোস্টের Internal Link দিতে হবে। যেমনটা করা হয়েছে উইকিডিয়াতে।

তাছাড়া Internal Link আপনার সাইটের বাউন্স রেট কমিয়ে দিয়ে পারে। তার ফলে আপনার পেজ ভিউও বেড়ে যাবে।

তাই ব্লগ লেখার নিয়ম সমূহের মধ্যে এটিকে বেশ গুরুত্ব দিতে হবে। তবে আপনার সফলতার হার অনেক বেড়ে যাবে।

এক্সটার্নাল লিংক (External Link)

আমারা আমাদের পোস্টে এক্সটার্নাল (External Link) লিংক দিতে কৃপণ বোধ করি। কিন্তু আমাদের পোস্টে রিলেটেট এক্সটারনাল লিংক দেওয়ার উচিত।

আর এক্সটারনাল লিংক দেওয়াতে সার্স ইঞ্জিন বোঝতে পারে আপনার ওয়েব সাইট বা পোস্টের কি বিষয়ে লিখা হয়েছে।

তাই আপনার পোস্টে রিলেটেট কিওয়ার্ড দিতে ভুলবেন না। আর যদি ভিজিটরের উপকারে আসে তাহলে তো কথাই নেই।

টাইটেলে কিওয়ার্ড ব্যবহার করা (Use Keyword in Tittle)

ব্লগ পোস্টের টাইটেলে কিওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। যার ফলে মানুষ যখন সার্স ইঞ্জিন বা গুগলে সার্স করবে তখন সে সেই কিওয়ার্ড দেখতে পারবে।

ফলে আপনার পোস্টে ক্লিক করার সম্ভবনা অনেক বেড়ে যাবে। তাছাড়া সার্স ইঞ্জিনও সেই কিওয়ার্ডের জন্য আপনার পোস্ট উপরের দিকে দেখাতে চাইবে।

তাই পোস্টের টাইটেলে কিওয়ার্ড ব্যবহার করুন। আর চেষ্টা করবেন পোস্টের টাইটেল যেন আকর্ষণীয় হয়।

যাতে করে মানুষ ক্লিক করতে চায়। তবে এমনভাবে টাইটেল দিবেন না যা আপনার পোস্টের উপর ভিজিটের অবিশ্বাস তৈরি হয়।

H1, H2 ও H3 ট্যাগে কিওয়ার্ডের ব্যবহার (Use of Keyword in H1, H2, and H3)

টাইটেলের পাশপাশি পোস্টের বিভিন্ন হেডিং-এ ফোকাসিং কিওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। তাতে আপনার পোস্টটি র‍্যাংকিং এ অনেক এগিয়ে থাকবে।

তবে চেস্টা করবেন H1, H2 ও H3 ট্যাগে কিওয়ার্ডের ব্যবহার নিশ্চিত করতে। কেননা এই হেডিং গুলো সবচেয়ে বড়।

আর সার্স ইঞ্জিন এই কিওয়ার্ডগুলো বেশ ভাল করে ডিটেক্ট করে। তাই আমি রিক মেন্ড করবো আপনার পোস্টের সবচেয়ে বড় হেডিং গুলোতে কিওয়ার্ড ব্যবহার করতে।

আর আপনার পোস্টে যদি সুযোগ থাকে তাহলে রিলেটেট কিওয়ার্ডগুলোও হেডিং-এ রাখতে পারেন। ব্লগে পোস্ট করার এই নিয়মও বেশ কাজে দেয়।

Leave a Reply