এসইও (SEO) কি? কত প্রকার? নতুনদের যে বিষয়গুলো জনতে হবে

অনলাইনে যারা কাজ করে বা কাজ করতে ইচ্ছুক তারা হয়ত এসইও (SEO or Search Engine Optimization) শব্দটি শুনে থাকবেন। আমারা নতুনদের জন্য এই বিষয় নিয়ে বিস্তারিত বলতে যাচ্ছি। এই আর্টিকেলে আমরা এসইও (SEO) কি, কত প্রকার এবং এর বেসিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।

এসইও কি? (What is SEO or Search Engine Optimization)

এসইও কি

এসইও (SEO) কি? SEO এর পূর্ণরূপ হচ্ছে Search Engine Optimization (সার্স ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন)।

অর্থাৎ এসইও হচ্ছে একটি বিশেষ প্রক্রিয়া বা কৌশল যেটির মধ্যমে সার্স ইঞ্জিন থেকে ফ্রিতে অর্গানিক ভিজিটর আনা যায়।

পেইড মেথড ছাড়া সার্স ইঞ্জিন (Search Engine) থেকে সে সকল ভিজিটর আসে তাদেরকে অর্গানিক ভিজিট বলা হয়ে থাকে।

বিষয়টি আরকেটু পরিষ্কার করলে বোঝতে পারবেন। আমাদের কোনো তথ্যের প্রয়োজন হলে আমরা সার্স ইঞ্জিনে খুঁজে থাকি। যেমন গুগল (Google), বিং (Bing), ইয়াহু (Yahoo) ইত্যাদি।

সার্স ইঞ্জিন সব সময় চেষ্টা করে আমাদেকে সঠিক ও ভাল মানের কনটেন্ট (Content) প্রদর্শন করতে।

বলে রাখা ভাল যে কন্টেন্ট হলো একটি ওয়েবসাইটে থাকা বিভিন্ন অডিও (Audio), ভিডিও (Video), আর্টিকেল (Articles) বা কোনো তথ্য। যা আমরা খুঁজে থাকি। এখানে দেখতে পারেন একটি ওয়েবসাইট বানানোর নিয়ম

কিন্তু ইন্টারনেটে একই বিষয় বা কন্টেন্ট নিয়ে অনেক ওয়েবসাইট থাকে। তাহলে সার্স ইঞ্জিন আপনার কাছে কোন ওয়েবসাইট প্রদর্শন করবে?

এই জন্য সার্স ইঞ্জিন ক্রিকেট বা ফুটবলের টিমের মত প্রতিটি ওয়েব পেজের র‍্যাংকিং করে থাকে। যেমন আপনি কোনো বিষয় নিয়ে গুগলে সার্স করলে সর্ব প্রথম যে ওয়েব পেজ পাবেন সেটির র‍্যাংকিং এক নাম্বার।

এইভাবে পর্যায়ক্রমে দুই, তিন, চার… র‍্যাকিং গুলো সাজানো থাকে। কিন্তু এই র‍্যাকিং গুলো সাজানো হয় কিভাবে?

প্রত্যেকটি সার্স ইঞ্জিন অ্যালগরিদমের সাহায্যে এই র‍্যাংকিং গুলো তৈরি করে থাকে। এই অ্যালগরিদম একটি ওয়েবসাইটের গুনগত মান পরীক্ষা করে এবং ভাল ওয়েবসাইট গুলোকে সার্স ইঞ্জিনের প্রথম দিকে প্রদর্শন করে।

seo কি

আর এইসব অ্যালগরিদমের কিছু নিয়ম বা ফ্যাক্টর থাকে। এই নিয়ম গুলো মেনেই এসইও করা হয়। আর যেসব কন্টেন্টে এইসব সুনির্দিষ্ট নিয়ম বা ফ্যাক্টর নিয়ে তৈরি করা হয় তাদেরকে বলে এসইও ফ্রেন্ডলি কন্টেন্ট (SEO-Friendly Content)।

মনে রাখবেন সাধারণভাবে তৈরি করা কন্টেন্ট থেকে এসইও ফ্রেন্ডলি কন্টেন্ট সার্স ইঞ্জিনে বেশি র‍্যাংক করে থাকে। যার ফলে এসইও করা একটি ওয়েবসাইটের আয় অনেক গুন বেড়ে যায়।

তাই আপনি যদি কোনো ওয়েবসাইটে কন্টেন্ট তৈরি করে থাকেন তাহলে সব সময় চেষ্টা করবেন গুগলের অ্যালগরিদম মেনে এসইও ফ্রেন্ডলি কন্টেন্ট তৈরি করতে।

এসইও কি বোঝে থাকলে চলুন দেখা যাক এসইও কত প্রকার ও কি কি।

এসইও কত প্রকার (Types of SEO or Search Engine Optimization)

এসইও কত প্রকার

প্রকৃত অর্থে এসইও কত প্রকার এটা নিয়ে বিভিন্ন মতামত রয়য়েছে। এসইও বা সার্স ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করার অনেক উপায় রয়েছে। তার মধ্য কিছু আছে ইথিকাল এসইও।

আর কিছু এসইও রয়েছে যেগুলো সার্স ইঞ্জিনকে ধোকা দেওয়ার জন্য করা হয়। যাতে করে র‍্যাংকিং এ আসা যায়।

কিন্তু প্রকৃত এসইও এর যে গুলস বা নিয়ম এই ধরনের এস ইও তে তা মানা হয় না। তাই অনেকে এসব উপায়কে এসইও হিসাবে অন্তর্ভুক্ত কররেন না।

তাছাড়া এসব এসইও করলে সাময়িক কিছু সুবিধা পাওয়া গেলেও। কিছু দিন পর সার্স ইঞ্জিন প্যানল্টি (Penalty) দিয়ে থাকে। যা ফলে ঐ ওয়েবসাইট র‍্যাংকিং হারায়।

এমনকি ভবিষ্যতে ভাল মানের কন্টেন্ট তৈরি করলেও ভাল পজিশনে যেতে পারে না। তাই এসব এসইও হিসাবে গ্রহনযোগ্য নয়।

আমারা তাই প্রকৃত এসইও বলতে যা বোঝায় তা নিয়ে আলোচনা করব। প্রকৃত অর্থে এসইও তিন প্রকার। যথাঃ

  • অনপেজ এসইও (On-page SEO)
  • অফপেজ এসইও (Off-page SEO)
  • ট্যাকনিক্যাল এসইও (Technical SEO)

অনপেজ এসইও কি (What is On-page SEO)

অনপেজ এসইও

যে পেজ বা পোস্ট সার্স ইঞ্জিনে র‍্যাংকিং করার জন্য ঐ পেজে বা পোস্টে যেসব বিশেষ কৌশল বা নিয়ম ব্যাবহার করা হয় তাকে অনপেজ এসইও (On-Page SEO) বলে।

উদাহরণ সরূপ আপনি আমাদের এই পোস্টটি লক্ষ্য করুন। একটু ভালভাবে খেয়াল করলে দেখবেন যে আমরা এই পোষ্টে বড় কোনো প্যারাগ্রাফ তৈরি করিনি।

অর্থাৎ আমরা সর্বোচ্চ দুই তিনটি বাক্য এক সাথে লিখার পর কিছু খালি যায়গা (Space) রেখেছি যাকে প্যারাগ্রাফ বলা হয়।

এই ধনের ছোট ছোট প্যারাগ্রফ তৈরি করা এসইও এর বিশেষ একটি কৌশল। আর এটি আমারা করছি আমাদের এই পেজ বা পোস্টেই। তাই এটিকে অনপেজ এসইও বলে।

এমন আরও অনেক অনপেজ এসইও এর নিয়ম বা কৌশল রয়েছে। যে নিয়মগুলো মাধ্যমে একটি পেজের অনপেজ এসইও সম্পূর্ণ করা হয়।

চলুন দেখে আসা যাক অনপেজ এসইও এর একটি চেক লিস্টঃ

  • কিওয়ার্ড রিসার্চ (Keyword Research)
  • ইউআরএল অপটিমাইজেশন (URL Optimization)
  • ভূমিকায় কিওয়ার্ড (Keyword in Introduction)
  • ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ(Short Paragraph)
  • ইমেজ অলটার ট্যাগ (Image Alter Tag)
  • ইমেজ অপটিমাইজেশন (Image Optimization)
  • ইন্টারনাল লিংক (Internal Link)
  • এক্সটারনাল লিংক (External LInk)
  • টাইটেলে কিওয়ার্ড ব্যবহার করা (Use Keyword in Tittle)
  • H1, H2 ও H3 ট্যাগে কিওয়ার্ডের ব্যবহার (Use of Keyword in H1, H2, and H3)
  • কিওয়ার্ড ডেনসিটি (Keyword Density)

উপরের কাজগুলো কিভাবে করবেন তা নিয়ে আমাদের বিস্তারিত একটি পোস্ট রয়েছে। এখানে দেখুন ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম নামে সেই পোস্ট।

সার্স ইঞ্জিনে র‍্যাংকিং পাওয়ার জন্য অনপেজ এসইও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অনেক সময় শুধু অনপেজ এসইও করেই ভাল পজিশনে আসা যায়।

তাই একটি পেজের অনপেজ এসইও যত ভাল মানের হবে। সেই পেজটি তত সার্স ইঞ্জিনে পজিশন করে নিবে।

তাই সব সময় চেস্টা কবেন আপনার ওয়েবসাইটে নিঁখুতভাবে অনপেজ এসইও করতে। ওয়ার্ড়পেস ওয়েবসাইটে Yoast SEO প্লাগিন দ্বারা খুব সহজেই অনপেজ এসইও করা যায়।

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে না জানলে আপনি টেক ওয়াল্ডের অনেক বড় একটি বিষয় মিস করে যাবেন। এখানে দেখুন ওয়ার্ডপ্রসে কি?

অফপেজ এসইও কি? (What is Off-Page SEO)

অফপেজ seo কি

ওয়েবসাইটের বাহিরে যে এসইও করা হয় তাকে অফপেজ এসইও (Off-Page SEO) বলে। মানে আপনার ওয়েবসাইটের বাহিরে অন্য কোনো ওয়েবসাইটে যে এসইও হবে তাই অনপেজ এসইও।

উদাহরণ সরূপ আপনার ওয়েবসাইট অন্য কোনো ওয়েবসাইট থেকে লিংক পেল। যাকে এসইও এর ভাষায় ব্যাকলিংক (Backlink) বলে।

ব্যাকলিংক পাওয়ার ফলে ঐ লিংক থেকে আপনার সাইটে ভিজিটর আসবে। সাথে সাথে আপনার সাইটের ডোমেইন অথোরিটি (Domain Authority) বড়বে।

ডোমেইন অথোরিটি হলো একটি ওয়েবসাইটের ডোমেনের স্কোর। যা সার্স ইঞ্জিনে একটি ওয়েবসাইট কতটা গ্রহণ যোগ্য তা বোঝয়।

ডোমেইন অথোরিটির স্কোর সাধারণত ১ থেকে ১০০ পর্যন্ত হয়ে থাকে। এই সংখ্যা যত বেশি হবে সেই ডোমেইন তত ভাল মানের হবে। যেমনঃ গুগলের ডোমেইন অথোরিটি ১০০।

আর এই ডোমেইন অথোরিটি বাড়ানোর অন্যতম মাধ্যম হলো ব্যাকলিংক। তাই ভাল মানের কন্টেন্ট তৈরির পর ব্যাকলিংকই হলো সবচেয়ে বড় এসইও ফ্যাক্টর।

তাই অফপেজ এসইও এর মূল ভৃত্তি হলো ব্যাকলিংক। তাছাড়া নিচ থেকে দেখুন অফপেজ এসইও এর চেকলিস্ট

  • ব্যাকলিংক/লিংক বিল্ডিং (Backlink/Link Building)
  • সোশ্যাল শেয়ার/মার্কেটিং (Social Share/Marketing)
  • ইমেল মার্কেটিং/সাবস্ক্রিপশন (Email Marketing/Subscription)
  • গেস্ট পোস্টিং (Guest Posting)
  • ফোরাম পোস্টিং (Forum Posting)
  • সোশ্যাল বুকমার্কিং (Social Bookmarking)
  • ব্রোকেন লিংক (Broken Link)
  • ওয়েব ২.০ (Web 2.0)
  • ডকুমেন্ট শেয়ারিং (Document Sharing)
  • ইনফোগ্রাফিক সাবমিশন (Infographic Submission)

একটু লক্ষ্য করলে দেখবেন যে প্রত্যেকটি স্টেটিজি মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে ব্যাকলিংক। তাই ভাল মানের ডোমেইন থেকে লিংক নিতে পারলেই অনেকটা অফপেজ এসইও হয়ে যায়।

তবে মনে রাখবেন সব সময় সঠিক নিয়মে লিংক বিল্ডিং (Link Building) করতে হবে। তাছাড়া উপরের সকল পদ্ধতি এখন তেমন কাজ করে না।

ট্যাকনিক্যাল এসইও কি (What is Technical SEO)

ট্যাকনিক্যাল এসইও কি

একটি ওয়েবসাইটের অনেক ট্যাকনিক্যাল বিষয় থাকে যেগুলো সার্স ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বা এসইও তে অনেক বড় ভূমিকা পালন করে।

তার মধ্যে ওয়েবসাইটের স্পিড (Website Speed), মোবাইল ফ্রেন্ডলি (Mobile Fiendly) ডিজাইন অন্যতম। সাধারণত বেশির ভাগ ওয়েবসাইটের ডিজাইন এখন মোবাইল ফ্রেন্ডলি হয়ে থাকে।

তবে মনে রাখবেন বর্তমানে সার্স ইঞ্জিন সমূহ ওয়েবসাইটের স্পিডকে বেশ গুরত্ব দিচ্ছে। তাই আপনার ওয়েবসাইটে ভাল স্পিড দিচ্ছে কিনা তা নিশ্চিত করুন।

ওয়েবসাইটের স্পিড চেক করার জনপ্রিয় তিনটি টোল (Tool) হচ্ছেঃ

চলুন এইবার ট্যাকনিক্যাল এসইও এর চেক লিস্ট দেখা যাক।

  • ওয়েবসাইট স্পিড (Website Speed)
  • মোবাইল ফ্রেন্ডলি (Mobile Friendly)
  • সার্স কনসোলে সাবমিট (Submit in Search Console)
  • এসএসএল সার্টিফিকেট (SSL Certificate)
  • সাইট আর্কিটেকচার (Site Architecture)
  • সিকিউরিটি (Security)
  • ওয়েব অ্যাানালাইটিক্স (Web Analytics)

শেষ কথা

আশা করি এসইও কি, কত প্রকার এই বিষয়ে আপনারা স্পষ্ট একটি বেসিক ধারণা পেয়েছেন। তবে সার্স ইঞ্জিনে ভাল পজিশনে যেতে এসইও শিখার বিকল্প নেই।

তাই আপনি এই বিষয়ে নতুন হয়ে থাকলে নিয়মিত এসইও শিখতে থাকুন। ইউটিউব বা গুগলে সার্স করলে অনেক টিউটোরিয়াল পাবেন।

কোনো একটি টিউটোরিয়াল দেখে বাসায় প্রেকটিক্স করুন। এই নিয়ম ফলো করলে আশা করি আপনি নিজেই কিছু দিন পর এসইও করতে পারবেন।

প্রয়োজনে আমাদের কাছে ইমেইল করতে পারেন। আমাদের ইমেইল ঠিকানা [email protected]। আর হ্যাঁ কোনো কিছু জানতে চাইলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।

4 Comments

  1. Past Question PDF October 10, 2020
    • Md. Yasin Siddiquee October 11, 2020
  2. Aniket Kumar October 21, 2020
    • Md. Yasin Siddiquee October 22, 2020

Leave a Reply